posnews.xyz

কিছু না জেনেও ভাব নেওয়া কখনোই ভাল নয়

একটা সময় ছিল যখন মানুষ কোন কিছু জানলে তার পাশের মানুষেরা অনেক বেশি প্রশংসা করত এবং তাকে আলাদা করে সম্মান দেয়া হতো। কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় দেখা যায় আমাদের সমাজে অনেক বেশি পরিবর্তন চলে আসে এবং আমাদের অবস্থা বর্তমানে এমন হয় যে, যেহেতু জানা লোকের তুলনায় না জানা লোকের সংখ্যা বেশি তাই তাদেরকে নিয়ে মজা করা শুরু হয়ে যায় এবং তাদেরকে বিভিন্ন ধরনের নামকরণ করা হয় (যেমন আতেল)। 

বিষয়টা শুধুমাত্র যদি তাদের বন্ধুদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকত, তবে সেটা আলাদা বিষয় কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে সম্পূর্ণ ভিন্ন। বর্তমানে আপনি দেখবেন বিভিন্ন স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত যে শিক্ষার্থীগুলো অনেক বেশি পড়াশোনা করে তাদেরকে আতেল বলে এমন ভাবে ট্রিট করা হয় যেন তাদেরকে এমন ভাবে ট্রিট করা হয় যেন তারা একটা অপরাধ করে ফেলেছে, তারা ক্লাসে ফার্স্ট হয়, তারা ক্লাসের সামনে বসে, তারা ক্লাসে শিক্ষকের প্রশ্নের উত্তর দেয়, শিক্ষককে বিভিন্ন প্রশ্ন করে -এটা তাদের অনেক বড় অপরাধ। 

আর সবথেকে খারাপ বিষয় হলো আপনি দেখবেন যে, একটা সময় মানুষ না জানতে পারলে, না বুঝতে পারলে তার মধ্যে একটা গিলটি ফিল আসত। কিন্তু এখন তারা আর সেই গিলটি ফিল করে না বরং তাদের না জানা টাকেই জানার থেকে বেশি প্রাধান্য দিচ্ছে।  আপনি দেখবেন বর্তমানে একজন হয়তো বা কোরান পড়তে জানে না, সে কোরআন পড়তে জানা লোককে নিয়ে হাসি তামাসা করতে কোনোরকম দ্বিধাবোধ করে না। আবার কেউ একজন পাওয়ার পয়েন্ট এর কাজ জানে না অথবা গ্রাফিক্সের কাজ জানে না কিন্তু যে জানে ঠিকই তকে আতেল বলে উপহাস করছে। 

এই যে একটা কালচার তৈরি হয়েছে আমাদের মধ্যে যে, কোন কিছু না জেনে, কোন কিছু না পেরে তার পরেও মানুষের উপরে থাকার চেষ্টা এবং কোন কিছু না পারাটাই ব্যর্থতা হিসেবে না দেখে সেটাকে প্রশংসার মর্যাদায় দেখতে চাওয়া বা সেটা নিয়ে প্রশংসা করা, নিজের সেলফ হ্যাপিনেস এ ভোগা – এটা কিন্তু কখনোই ভালো কিছু বয়ে আনবে না। বরং এটা আমাদের সমাজকে আরো বেশি না জানার মধ্যে থাকতে সাহায্য করবে এবং এর ফলে আমাদের তরুণ প্রজন্ম তার না জানাটাকে গর্বের বিষয় হিসেবে মনে করবে এবং জানাটা কে অপরাধ হিসেবে নিয়ে নেবে। যেমন- এখন অনেক ছেলেই যারা ফার্স্ট বেঞ্চে  বসে তারা নিজেদেরকে ব্যাক বেঞ্চার পরিচয় দিতে পছন্দ করে।

Read More: লাইফ সত্যিই unfair
সম্ভবনাময় এক দেশ, বাংলাদেশ

এই যে ফার্স্ট বেঞ্চার যে ব্যাক বেঞ্চার হিসেবে নিজেকে পরিছয় দিচ্ছে কিসের কারনে? কি এমন পরিবর্তন আসছে যে, সে ফার্স্ট বেঞ্চে বসেও তার পরিচয় দিতে লজ্জা বোধ জাগছে? তার মানে হল-  যারা ফার্স্ট বেঞ্চে বসে বন্ধুরা তাকে ভালভাবে দেখে না, আতেল ভাবে, তাদেকে নিয়ে আড্ডায় উপহাস করে।  যদি তাদের এই কালচার চলতেই থাকে তবে সমাজের ভবিষ্যৎ দৃশ্যপট কেমন হতে পারে একবার চিন্তা করুন। আপনি নিজে জানেন না এইজন্য আপনার সরি হওয়া উচিত, আপনি যে পারেন না এইজন্য আপনার মধ্যে অপরাধবোধ আসা উচিত, আপনার সেগুলো পারার জন্য চেষ্টা করা উচিত। 

আপনাদের সকলের মনে রাখা উচিত যে, কোনকিছু না জানা কখনোই ভালো কিছু নয় আর যারা জানে তাদেরকে নিয়ে উপহাস করা নিকৃষ্ট লেভেলের ব্যর্থতা যেটা কিনা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকেও খতিগ্রস্থ করবে।

Follow us on Facebook.

Leave a Reply

Positivity
%d bloggers like this: